8 COMMENTS Attamkin আত-তামকীন

file14.jpeg

মুশরিকদের হত্যা কর যেখানেই তাদের পাও

আসলিহাত ছাড়া হারবি দেশগুলোতে ম্যাস কিলিং করার উপায়

আপনি হয়তো অবাক হতে পারেন এটা ভেবে যে কিভাবে আসলিহাত ছাড়া কুফফারদের হত্ত্যা করা যাবে ? তাহলে আপনার জন্যই এই নির্দেশনা ।

আমরা জানি হারবি কুফফার মারার ব্যাপারে কোন সমস্যা নাই, এদেরকে ম্যাস কিলিং করা যায়। আপনাকে যা করতে হবে তা হল আপনার সামর্থ্য থাকলে ইন্ডিয়া, রাশিয়া, চিন বা আমেরিকায় চলে যান। ভ্রমণ ভিসা হলেও যেতে পারেন ইংশা আল্লাহ। অথবা আপনার কোন আত্মীয় যদি সেই দেশগুলোর কোন একটিতে থেকে থাকে তাদেরকে জিহাদের জন্য তাহরিদ করুন। যখন সেই আত্মীয় জিহাদের ব্যাপারে রাজি হয়ে যাবে তখন নিন্মক্ত পদ্ধতিগুলোর মাঝে যে টি ইচ্ছা তাকে এপ্লাই করতে বলুন।

১। একটা বড় ট্রাক নিয়ে টার্গেটকৃত দেশের কোন জনবহুল স্থানে চলে যাবে। সেটা হতে পারে ঢাকার নিউ মার্কেটের মত কোন ক্রাউডেড প্লেস/ সমুদ্র সৈকত । তারপর আল্লাহর নামে সমানে ওদের উপর গাড়ি চালানো শুরু করবে। ইংশা আল্লাহ ১০০ এর নিচে মরবে না।

২। কিছু ইলেক্ট্রিক করাত পাওয়া যায়। তা নিয়ে কেউ যদি Dhaka/ দিল্লি/ নিউ ইউরক সিটির ব্যাস্ত মোড়ে সমানে কাফেরদের গলা কাটা শুরু করে তাহলে ইংশা আল্লাহ একটা ম্যাস কিলিং করা সম্ভব। আল্লাহ চাইলে ১০০ মরবেই ইংশা আল্লাহ।

এই দুটি পদ্ধতি এপ্লাই করার সুবিধাঃ

১। কুফফাররা হয়তো আসলিহাতের ব্যাপারে নজরদারি করতে পারবে বাট গাড়ি চালানোতে কে নজরদারি করবে।

২। আর ইলেক্ট্রিক করাত কিনতেও তেমন সমস্যা হবে না ইংশা আল্লাহ। কারন আপনি যদি এতা বলেন আপনার বাগানের বড় গাছ কাটবেন তাহলে কে সন্দেহ করবে ?
৩। এইরকম একটা এটাক করতে পারলে হারবি কুফররা বুঝবে সারাক্ষন অনিরাপদ থাকতে কেমন লাগে।

৪। বাংলাদেশি নাস্তিকগুলো যেমন পিছনে ব্যাগ হাতে কাউকে দেখলেই ভয় পায় ঠিক তেমনি এই কাফেররাও পিছনে গাড়ীর আওয়াজ শুনলেই ভয় পাবে, কোন মেশিনের আওয়াজ শুনলেই ভয় পাবে।

৫। বোমা বা অন্য কিছু তৈরি করা লাগবে না, তাই কুফফারদের দেশে (আমেরিকা, রাশিয়া, চীন, হিন্দ) এদের গোয়েন্দা বাহিনির সন্দেহের তালিকাও আপনার আসা লাগবে না। ওরা ধারনাও করতে পারবে না।

প্রিয় ভাই কাফেরদের জবাই করার সুন্দর নিরাপদ দুইটি কৌশল আপনাদের বলে দিলাম। এখন আপনারা যদি হাশরের ময়দানে এই ওজর দেন যে আপনি জানতেন না কিভাবে অস্ত্র চালাতে হয়/ আপনার কাছে জিহাদে/ Dawlatul ইসলামে যোগ দেয়ার কোন লিঙ্ক নেই/ আপনি বোমা তৈরি করতে জানেন না

তাহলে আল্লাহর কাছে এই ওজর গ্রহন হবে না। জিহাদ করার জন্য কোন দলের প্রয়োজন নেই। আপনি গড়ে উঠুন একজন লোন উলফ হিসেবে।

ইয়া আল্লাহ তুমি সাক্ষী থাকো আমি পৌঁছে দিয়েছি।

আমার কথা শেষ করবো একটা কথা দিয়েই তা হল নিজের বিয়ের জন্য যদি আমরা দেশ জুড়ে মেয়ে খুজে একটা বিয়ে করতে পারি তাহলে কি এইরকম একটি বরকতময় হামলার জন্য নিজের সবকিছু ব্যয় করতে পারি না …।।

যদি আপনার কোন আত্মীয় RAB/ডিবি/পুলিশের কোন উচ্চ পদস্থ অফিসার হয়ে থাকে তবে তার বাসায় বেড়াতে যান অথবা তাকে নিজের বাসায় দাওয়াত দিন। তারপর চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে ফেলুন। হে আমার ভাই , সামনে কুরবানি ঈদ এই সময় চাপাতি কিনা এবং তা নিয়ে ঘুরে বেড়ানো খুব ইজি হয়ে যাবে ইংশা আল্লাহ। এখনি সময় গত দুই যুগ ধরে মুজাহিদিনদের উপর এই বাংলার তাগুতরা যে অত্যাচার করছে তার প্রতিশোধ নেওয়ার। আপনিই হন আব্দুর রহমান ইবন আওফ, আবু বকর সিদ্দিক (রাজিঃ) যারা তাদের পিতা এবং পুত্রের সাথে যুদ্ধ করেছে।

file15.jpeg

8-comments-attamkin

Advertisements